বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

সুুন্দরগঞ্জে ঘাঘট নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ১০ গ্রাম প্লাবিত,পানিবন্দী ২ হাজার পরিবার, ২ হাজার হেক্টর আমন ক্ষেত নিমজ্জিত

সুুন্দরগঞ্জে ঘাঘট নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ১০ গ্রাম প্লাবিত,পানিবন্দী ২ হাজার পরিবার, ২ হাজার হেক্টর আমন ক্ষেত নিমজ্জিত

সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গত কয়েক দিনের টানা ভারী বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দের গারোকাটা এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়ি বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ায় ঘাঘট নদীর পানি ঢুকে ১০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন দুই হাজার পরিবার। বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় দুই হাজার হেক্টর আমন ক্ষেত সম্পুর্নভাবে নিমজ্জিত হয়েছে। নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। এতে করে বামনডাঙ্গা, সর্বানন্দ ইউনিয়নসহ ঘাঘট নদীর পূর্বাঞ্চলীয় কয়েকটি ইউনিয়ন প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পানিবন্দী মানুষজন সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন। এদিকে ভাঙ্গন কবলিত বেড়িবাঁধটির মধ্য দিয়ে প্রবাহিত পানির স্রােত ঠেকানোর জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা শত-শত মানুষের সহযোগিতা নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বালির বস্তা ফেলছেন। এছাড়া যাতে বাঁধটির অন্য স্থানে নতুন করে ভাঙ্গতে না পারে সেদিকে নজর রাখছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওয়ালিফ মন্ডল জানান, ঘাঘট নদীর বন্যায় এক হাজার ৫’শ পরিবার পানিবন্দী হয়েছেন। নতুন করে পানিবন্দী পরিবারের তথ্য আসছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ জানান, এক হাজার ৫’শ হেক্টর আমন ক্ষেত ও ৯০ হেক্টর সবজি ক্ষেত নিমজ্জিত হয়েছে। বন্যার পানি ঢুকে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি নতুন করে আরো আমন ক্ষেত নিমজ্জিত হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী লুতফুল হাসান ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, এ পর্যন্ত পানিবন্দী মানুষের মাঝে ৫ মেট্রিকটন চাল, শুকনো খাবার, পানি বিশুদ্ধকরণ টেবলেট, পানির পাত্র বিতরণ করা হয়েছে। আরো অনুদান বিতরণের অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া বেড়ি বাঁধটির ভাঙ্গন ঠেকানোর জন্য বস্তা সরবরাহ করা হচ্ছে। তিনি আরো জানান, গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বাঁধ এলাকায় সার্বক্ষনিক তদারকি করছেন।

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com