মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০১:০৩ পূর্বাহ্ন

সুন্দরগঞ্জে ৩৩ সপ্রাবির ক্ষুদ্র মেরামতের টাকা কল্পিত ভাউচার বানিয়ে উত্তোলন

সুন্দরগঞ্জে ৩৩ সপ্রাবির ক্ষুদ্র মেরামতের টাকা কল্পিত ভাউচার বানিয়ে উত্তোলন

সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুন্দরগঞ্জে ৩৩ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র মেরামতের মেয়াদ শেষ হওয়ার দুই মাস পার হলেও কাজ শুরু হয়নি এখনো। জানা যায়, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি৪) এর আওতায় ২০২২-২৩ অর্থ বছরে এ উপজেলার ৩৩ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্ষুদ্র মেরামত বাবদ বিদ্যালয় প্রতি দুই লক্ষ করে টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কাজ বাস্তবায়নের তারিখ ছিল ৩০ জুন। সেখানে দেড় মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো কাজ শুরুই হয়নি। টাকা ফেরত যাবে বলে ভূয়া বিল ভাউচার বানিয়ে উত্তোলন করা হয়েছে প্রায় ৬৬ লাখ টাকা। ক্ষুদ্র মেরামতের দুই লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া ধর্মপুর ১ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘প্লান ও আবেদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে তিনি স্বীকার করেন এটা অনিয়ম।
বোয়ালি ১ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনিছুর রহমান মোবাইল ফোনে বলেন, দুই লাখ টাকা বরাদ্দের টাকা চাচ্ছি। কিন্তু কর্তৃপক্ষ টাকা দিচ্ছেন না। তাই কাজ শুরু করতে পারিনি।
বামনজল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দিনারা বেগম বলেন, গত সপ্তাহে প্রকৌশলী বিদ্যালয়ে এসেছিলেন। আশা করছি সামনের সপ্তাহে কাজ শুরু করতে পারবো ইন্শাআল্লাহ।
উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলামকে পাওয়া না গেলেও তার অফিস সূত্র জানায়, গত ১২ জুন ৩৩ বিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র মেরামতের ৬৬ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া যায়। ছিল ঈদ-উল-আযহার বন্ধ। তাই ৩০ জুনের মধ্যে কাজ আরম্ভ করা সম্ভব হয়নি। টাকাটা যাতে ফেরত না যায়, সেজন্য উত্তোলন করে রাখা হয়েছে। সকল প্রকার প্রক্রিয়া শেষ, এখন কাজ শুরু হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর-এ-আলম বলেন, বিষয়টি জানা নাই। তবে কাজ আরম্ভ হয়নি কেনো সে বিষয়টি দেখছি। এ ছাড়া অন্য কোনো বিষয় আছে কি না তাও দেখতেছি।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com