মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
সাদুল্লাপুরে ঝুকি নিয়ে নৌকা ও বাঁশের সাঁকোয় নদী পারাপার গাইবান্ধায় যুগান্তরের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন গোবিন্দগঞ্জ রংপুর ইপিজেড বাস্তবায়নের দাবীতে মানববন্ধন সাঘাটায় ২০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ এক মাদক কারবারি আটক গাইবান্ধায় জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতির মিলনমেলা রোগ পরীক্ষা নামে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে হেলথ প্লাস ডায়াগনস্টিক সেন্টার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় এসএসসির প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে ২ শিক্ষক আটক সুন্দরগঞ্জে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা প্রেমিকের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন গাইবান্ধা পাসপোর্ট অফিসে দুদকের অভিযানঃ গ্রেফতার ৩ পলাশবাড়ীতে মাদকসহ ৩ কারবারি গ্রেফতার

সুন্দরগঞ্জে সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পে কাটছে তিস্তাপাড়ের অন্ধকার

সুন্দরগঞ্জে সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পে কাটছে তিস্তাপাড়ের অন্ধকার

স্টাফ রিপোর্টারঃ অর্থনৈতিক উন্নয়নে পিছিয়ে পড়া জনপদ সুন্দরগঞ্জ। বর্ষায় পানিতে ডুবে থাকে চরের জমি আর গ্রীষ্মে সাদা বালুর আস্তরণ। ঠিক তখনি উন্মোচিত হয়েছে সম্ভাবনার দ্বার। চরের সাড়ে ৬০০ একর জমিতে গড়ে উঠেছে দেশের সবচেয়ে বড় ও এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র। ফলে চরাঞ্চলের মানুষের ঘটেছে জীবনযাত্রার আমূল পরিবর্তন।
তিস্তা নদীর এপারে সুন্দরগঞ্জ এবং পাশেই রংপুরের পীরগাছা আর ওপারে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা। এই তিন উপজেলার সীমান্তবর্তী সংযোগস্থলে তারাপুর ইউনিয়নের লাটশালা ও চরখোর্দ্দা গ্রামের তিস্তা নদীর তীরে দেশের সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রটির অবস্থান। তিস্তা সোলার লিমিটেড নামে এ কেন্দ্র গড়ে তুলেছে বেক্সিমকো গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো পাওয়ার লিমিটেড।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৭ সালের দিকে নিজস্ব অর্থায়নে দুর্গম চরের তপ্ত বালু রাশির পরিত্যক্ত সাড়ে ৬০০ একর জায়গায় দেশের বৃহত্তম সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়। সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রে স্থাপন করা হয়েছে ৮৫টি মাউন্টিং পাইলস। যার ওপরে বসানো হয়েছে প্রায় ৫ লাখ ৬০ হাজার সৌর প্যানেল।
এসব সৌর প্যানেল থেকে ১২০টি ইনভার্টারের মাধ্যমে প্রতিদিন ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। এজন্য ২৮টি বক্স ট্রান্সমিশনে সংযোগ স্থাপন, সাবস্টেশনসহ ১৩২ কেভিএ ট্রান্সমিশন টাওয়ার নির্মাণ এবং জাতীয় গ্রিডে সংযুক্তির জন্য তিস্তা পাওয়ার প্ল্যান্ট থেকে রংপুর পর্যন্ত তৈরি করা হয়েছে ১২২টি টাওয়ারের ৩৫ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার লম্বা সঞ্চালন লাইন। এ লাইনের মাধ্যমেই সুন্দরগঞ্জের তিস্তাপাড়ের কেন্দ্রটি থেকে রংপুর গ্রিড সাবস্টেশনে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ডিসেম্বর থেকে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে উৎপাদিত বিদ্যুৎ। এ কেন্দ্র থেকে উৎপাদিত দৈনিক ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে জাতীয় গ্রিডে। প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ ১৩.৯৩ টাকা চুক্তি মূল্যে জাতীয় গ্রিডে দেয়া হচ্ছে।
কর্তৃপক্ষ জানায়, অতীতে যেখানে যেতে সাহস পেতেন না অনেকেই, ফলতো না কোনো ফসল সেখানে যাতায়াতের জন্য তৈরি করা হয়েছে একটি সড়ক। কাজের সুবিধার্থে ও প্রকল্পের তদারকির জন্য ভেতরেও রয়েছে কয়েকটি ছোট ছোট রাস্তা। এরই মধ্যেই জীবনমানে পরিবর্তনের হাওয়া লেগেছে স্থানীয় অধিবাসীদের। স্থাপিত হয়েছে মসজিদ ও মাদরাসা।
এলাকার মৃত মানুষের সমাধিস্থ করার কোনো সুনির্দিষ্ট জায়গা না থাকায় কর্তৃপক্ষের অনুদানে করা হয়েছে একটি কবরস্থানও। এছাড়া অনুদানও দেয়া হয়েছে স্থানীয় বিভিন্ন মসজিদ ও মাদরাসায়। সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রটির পাশেই ৩৫ একর জমিজুড়ে ব্যক্তিমালিকানায় চমৎকার এক নৈসর্গিক প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়ে উঠেছে আলীবাবা থিম পার্ক নামের একটি বিনোদন কেন্দ্র।
প্রতিদিন গাইবান্ধা, রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাটসহ পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসে এ তিস্তা পাড়ে। তাদের কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে অনেক ছোট বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও। এতে এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানও হয়েছে।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com