সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৯:৪৭ পূর্বাহ্ন

সুন্দরগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী পাতা খেলা অনুষ্ঠিত

সুন্দরগঞ্জে ঐতিহ্যবাহী পাতা খেলা অনুষ্ঠিত

সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের সাতগিরী হিরোবাজার গ্রামে স্থানীয় যুব সমাজের আয়োজনে পাতা খেলা অনুষ্ঠিত হয়। গত সোমবার বিকেলে খেলা দেখতে মাঠে ভিড় করেন হাজারো মানুষ। দীর্ঘদিন পর এমন খেলা দেখতে পেরে আনন্দিত দর্শকরা।
এদিন বিকেল ৪ থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই খেলা চলে। আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫টি তান্ত্রিক/ ওঝার দল আসে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে। খেলার জন্য মাঠের মাঝখানে লাগানো হয় কলা গাছ।
নিজ নিজ মন্ত্র দিয়ে তান্ত্রিকরা মাঠের মধ্যে থাকা পাতারূপী তুলা রাশির কয়েকজন মানুষকে মাঠের মাঝখান থেকে নিজের দিকে টানার প্রতিযোগিতা করেন। যে দল তাদের মন্ত্রের মাধ্যমে পাতাকে নিজেদের দাগের মধ্যে টানতে পারবে ও বশ করতে পারবে সেই দলই পয়েন্ট পাবে। পরে পয়েন্ট হিসাব করে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।
এ জন্য তান্ত্রিকরা সঙ্গে লাঠি, জবা ফুল, মন্ত্র পড়া লোটা ভর্তি পানি, ধুলা, আগরবাতি, মোমবাতিসহ বিভিন্ন প্রকার গাছের শিকড় বাকড় ব্যবহার করেন। তার সঙ্গে পড়তে থাকেন নানা ধরনের মন্ত্র। খেলায় বিজয়ী হয় গাইবান্ধার দাড়িয়াপুর কাবলির বাজার থেকে আগত আবু তাহেরের তান্ত্রিক দল ও গাইবান্ধা হাশেম বাজার থেকে আগত সুমন মিয়ার তান্ত্রিক দল।
এ খেলাকে ঘিরে ওই এলাকায় ছিল উৎসবের আমেজ। বিভিন্ন ধরনের দোকানিরা তাদের পসরা সাজিয়ে বসে। খেলার সময় মাঠের চারপাশে নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোরের উপচে পড়া ভিড় ছিল।
খেলা দেখতে আসা রাতুল হোসেন বলেন, পাতা খেলার নাম আগে শুনেছিলাম। কিন্তু আজকে স্বচক্ষে দেখতে পেলাম, খেলাটি খুব মজার। লিয়ন মিয়া বলেন, আমাদের এই গ্রামে আগে কখনও পাতা খেলা হয়নি। তাই আগ্রহ নিয়ে দেখতে এসেছি প্রথমবার।
৭০ বছর বসয়ী দর্শক মাহফুজুর বলেন, যখন ছোট ছিলাম সেসময় ঐতিহ্যবাহী ও জনপ্রিয় ছিল পাতা খেলা। আগে এই খেলা বিভিন্ন গ্রামে নিয়মিত হতো। কিন্তু কালের বিবর্তনে আজ কোথাও দেখা যায় না। তাই অনেক দিন পর এমন খেলার কথা শুনে ছুটে এসেছি দেখতে। আয়োজক কমিটির সদস্য রানু মিয়া জানান, এতো মানুষ খেলা দেখতে আসবে কল্পনাও করতে পারিনি।
অনেক আগে থেকে এই খেলার প্রচলন চলে আসছে। কিন্তু যুগ পাল্টানোর সাথে সাথে এই খেলা হারিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে আয়োজন না করায় ঐতিহ্যবাহী খেলাটি আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। তাই খেলাটি টিকিয়ে রাখতে ও মানুষকে আনন্দ দিতে এই আয়োজন করা হয়েছে। আগামীতে আরও বড় পরিসরে এ খেলার আয়োজন করা হবে।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com