বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৩:০৬ অপরাহ্ন

সুন্দরগঞ্জে অসময় তিস্তার ভাঙনে সর্বহারা চরবাসী

সুন্দরগঞ্জে অসময় তিস্তার ভাঙনে সর্বহারা চরবাসী

সুন্দরগঞ্জে প্রতিনিধিঃ থামছে না তিস্তার ভাঙন। অব্যাহত ভাঙনে সর্বহারা চরবাসী। গত ছয় মাসের অব্যাহত ভাঙনে সহস্রাধিক বসত বাড়িসহ হাজারও একর জমি নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। ভাঙনের মুখে হাজারও বসতবাড়ি এবং আবাদি জমি। স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে না উঠতে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত তিস্তার লাগামহীন ভাঙন চরবাসীকে দিশাহারা করে তুলেছে। ভাঙনের কারণে প্রতিনিয়ত ঘরবাড়ি সরানো চরবাসীর জন্য অসহনীয় কষ্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তিস্তার পানি কমে যাওয়ার পর থেকে উপজেলার শ্রীপুর, হরিপুর, বেলকা, চন্ডিপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন চরে ভাঙন শুরু হয়েছে। যতই পানি কমছে ততই ভাঙন বেড়েই চলছে। বিশেষ করে হরিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের তীব্র আকারে ভাঙন দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানগণের তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে গত ছয় মাসের অব্যাহত ভাঙনে সহস্রাধিক বসতবাড়ি নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। সেই সাথে হাজার একর জমি মৌসুমি ফসলসহ তিস্তার পেটে চলে গেছে। হরিপুর ইউনিয়নের মাদারিপাড়া গ্রামের ওয়াহেদ আলী জানান, ৫৫ বছর বয়সে তিনি ১০ বার নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে। চলতি বছরে তিনি ৩ বার নদী ভাঙনের স্বীকার হন। পরিবার পরিজন নিয়ে তিনি আর নদী ভাঙন মোকাবেলা করতে পারছেন না কাপাসিয়া ইউনিয়নের পল্লি চিকিৎসক শরিফুল ইসলাম জানান আমার বয়সে দেখিনি ৩-৪ দফা ভাঙ্গন। লাল চামার গ্রামটি অনেক বড় ছিল এই অব্যহত তিস্তার ভাঙ্গনে গ্রামটি বিলুপ্ত হয়েছে । হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাফিউল ইসলাম জিমি জানান, নদী পাড়ের মানুষ আমি নিজে। আমি জানি নদী ভাঙনের কষ্ট এবং জ্বালা যন্ত্রণা। নদী ভাঙন রোধে সরকারের বড় পদক্ষেপ ছাড়া আমাদের পক্ষে কোন কিছু করা সম্ভব নয়।
গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান জানান, নদী ভাঙন রোধ, সংস্কার, সংরক্ষণ আসলে বৃহৎ প্রকল্পের প্রয়োজন। এটি আসলের সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। তবে এর মধ্যে ৪০০ কোটি টাকার একটি বৃহৎ প্রকল্প হাতে নিয়েছে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী লুতফুল হাসান জানান, ভাঙন রোধে জিও টিউব ও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে বিভিন্ন ভাঙন কবলিত এলাকায়। এছাড়া সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে নদী ভাঙনের বিষয়টি লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com