বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২:১৭ অপরাহ্ন

সাদুল্লাপুরের গুচ্ছগ্রামে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণঃ চলছে মাদকসহ অসামাজিক কার্যকলাপ

সাদুল্লাপুরের গুচ্ছগ্রামে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণঃ চলছে মাদকসহ অসামাজিক কার্যকলাপ

সাদুল্লাপুর প্রতিনিধিঃ সাদুল্লাপুর উপজেলার জয়েনপুর গুচ্ছগ্রামে অবৈধভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণ করে ওই বাড়িতে নির্বিকারে চলছে মাদক ব্যবসাসহ নানা ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সাদুল্লাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের জয়েনপুর গ্রামের আবু তাহের মিয়ার ছেলে ও চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলাম কর্তৃক জয়েনপুর গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা মকবুল হোসেন ও রাহেলা বেগমের দুটি ঘর অবৈধভাবে ক্রয় করে। প্রায় ২ বছর আগে ক্রয় করা সরকারি ডিজাইনের ওই ঘরদুটি ভেঙে ফেলে সেখানে নিজ ইচ্ছেমত ঘরবাড়ি নির্মাণ করা হয়। এরপর থেকে আশরাফুল ইসলাম ওই বাড়িতে গড়ে তুলে মাদকের স্বর্গরাজ্য। সেখানে গাঁজা-ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক বিস্তারে এলাকার যুব সমাজ ধীরে ধীরে মাদক সেবনে আসক্ত হয়ে উঠেছে। এতে করে তুঙ্গে উঠেছে আশরাফুলের মাদক ব্যবসা।
দিন গড়িয়ে সন্ধ্যা নামলেই আশরাফুলের বাড়িতে পাল্টে যায় দৃশ্যপট । ওই বাড়িতে স্থানীয় যুবকসহ দুর-দুরান্ত থেকে আসতে শুরু করে মাদকসেবীরা। রাত যতই গভীর, ততই জমে উঠে মাদক সেবনের আসর। আর এই আসরে মাতাল হয়ে চলে যৌন হয়রানীমূলক কার্যকলাপ।
ওই গুচ্ছগ্রামে বেড়ে উঠা কিশোরী-যুবতী নারীদের অবাধে অত্যক্ত করে আসছে মাদকাসক্তরা। এর ফলে জয়েনপুর গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দারা তাদের কন্যা-সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন। আশরাফুলের অসামাজিক কর্মকা-ের প্রতিবাদ করলে তার উপর নেমে আসে অমানসিক নির্যাতন ও অপবাদ। ফলে কথিত আশরাফুলের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না কেউই।
স্থানীয়রা জানান, আশরাফুল শুধু মাদক ব্যবসায় নয়, এর পাশাপাশি চুরি-ছিনতাই কাজেও সক্রিয়ভাবে জড়িয়ে পড়েছে। কিছুদিন আগে সাদুল্লাপুর কলোনী মোড়স্থ জহুরুলের ছ মিলের সংলগ্নস্থানে তিন ব্যক্তিকে জিম্মি করে নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়েছে আশরাফুল। এ ঘটনায় মামলাও হয়েছে সাদুল্লাপুর থানায়।
এলাকাবাসী আরও বলেন, সম্প্রতি এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গিয়ে রোষানলে পড়েছিলেন একজন ইউপি মেম্বরও। আশরাফুল ওই মেম্বরের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অহেতুক অপবাদ ছড়ানো এবং ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। এক পর্যায়ে তার অত্যচার থেকে রেহাই পেতে ভুক্তভোগী ইউপি মেম্বর বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
এছাড়া বেশ কিছুদিন আগে মাদক বিক্রির দায়ে জেল খেটেছে কথিত আশরাফুল। আবার জেল থেকে ছাড়া পেয়ে গুচ্ছগ্রামের অবৈধবাড়িতে গড়ে তুলেছে মাদকের স্বর্গরাজ্য। শুধু তাই নয়, ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে মাদক ব্যবসা করায় তাকে দলের সদস্য পদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। তার নানাবিধ অনৈতিক কর্মকা- থেকে পরিত্রাণ পেতে এবং গুচ্ছগ্রাম থেকে উচ্ছেদের দাবি জানিয়ে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন এলাকাবাসী।
সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ নবীনেওয়াজ বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একই কথা জানালেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাহারিয়া খান বিপ্লব।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com