শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৪:২৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
ধাপেরহাটে জন্ম নিবন্ধন নিয়ে যত জ্বালা হয়রানীর শেষ নেই ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল রামচন্দ্রপুরে মাদকাসক্ত যুবকের ছুরিকাঘাতে নিহত ১ আহত ২ গাইবান্ধায় ১১ জন করোনা রোগী শনাক্ত  ভেজাল চিটাগুর তৈরির অপরাধে ১০হাজার টাকা জরিমানা সাঘাটায় ডেপুটি স্পীকারের সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল সাদুল্লাপুরে কর্মশালা অনুষ্ঠিত চারলেন সড়ক নির্মান কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগঃ এলাকাবাসীর তোপের মুখে বন্ধ হলো গোলচত্বর নির্মাণ কাজ গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় গাইবান্ধায় উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির দ্বি মাসিক সভা

সাদুল্যাপুরে জমির আইলে সেতু ১৭ বছর ধরে চলাচল বন্ধ

সাদুল্যাপুরে জমির আইলে সেতু ১৭ বছর ধরে চলাচল বন্ধ

স্টাফ রিপোর্টারঃ সেতু নির্মাণের ১৭ বছরে কোন মানুষ কিংবা পশু ওই সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করতে পারেনি। তৎকালীন সময়ে গ্রামের ফসলের জমিতে গরু ছাগল মানুষ যাতায়াতের জন্য জমির মালিকরা বড় আইল তৈরি করেছিল ফসলি ক্ষেতের মাঠে। ওই এলাকার লোকজন স্বেচ্ছাশ্রমে মাটি দিয়ে আইলটিকে ছোট রাস্তায় রুপ দিয়েছিল। এসডিএফ (সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন ) এমনি এক উঁচু সেতু নির্মাণ করেছিল যার সাথে রাস্তার কোন সংযোগ নেই। ফলে সেতুর উপর দিয়ে মানুষের চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়ে। সেতু নির্মাণের দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে সেটি কঙ্কালের মত অব্যবহৃত অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে।
সাদুল্যাপুর উপজেলার খোর্দ্দকোমরপুর ইউনিয়নের মাইটালের সড়ক নামক স্থানে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন(এসডিএফ) অপরিকল্পিতভাবে সেতুটি নির্মাণ করে এলাকার মানুষকে দূর্ভোগে ফেলেছেন ১৭ বছর ধরে। নির্মিত সেতুটি দিয়ে মানুষ তো দূরের কথা আজো একটি পশুও চলাচল করতে পারেনি বললেন স্কুল শিক্ষক আঃ কাদের আকন্দ। এলাকার ব্যবসায়ি রঞ্জু মিয়া জানান সেতুটি নির্মাণে মানব কল্যাণের চেয়ে মানুষের অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।২০০৩-০৪ অর্থবছরে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক বিভাগের একটি প্রতিষ্ঠান এসডিএফ। সেতু নির্মাণের পূর্বে ওই এলাকায় সেতুটি মানুষের উপকারে গুরুত্ব বহন করবে কিনা তা খোঁজখবর না করে অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণ করেন সেতুটি। ফলে সেতু নির্মাণের কারণে ওই এলাকার মানুষকে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।এসডিএফ এর সাদুল্যাপুর উপজেলার তৎকালীন বকশীগঞ্জ ক্লাস্টার ফ্যাসিলিলেটর সুলতান আহমেদ জানান, সেতুটি নির্মাণের আগে জায়গা নির্বাচন করা সঠিক হয়নি। সেতুর উচ্চতা এবং সড়কের উচ্চতা সমান হলে সেতুটি মানুষের উপকারে আসতো। খোর্দোকোমর পুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সাজু মিয়া জানান,অপরিকল্পিতভাবে তৈরি করা সেতুটি বিষয়ে উপজেলা পরিষদে একাধিক আলোচনা করেছি কিন্তু কোন কাজ হয়নি। সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নবী নেওয়াজ জানান, অকেজো সেতুটি ধ্বংস না করে দুই পাশে রাস্তা উঁচু করে সেতুর উপর দিয়ে চলাচল যোগ্য করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

 

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com