শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
সাদুল্লাপুরে প্রকাশ্যে বিনামূল্যের ভিজিএফ এর চাউল বেচাকেনা সুন্দরগঞ্জে কুরবানীর হাটে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ গ্রেফতার আতঙ্কে চার গ্রামে ঈদের আনন্দ বিষাদে পরিণত পলাশবাড়ীতে চায়না দুয়ারী শয়তান জাল পুড়িয়ে দিলেন অবশেষে গাইবান্ধা প্রেসক্লাব সিলগালা রাজস্ব হারাচ্ছে সরকারঃ জব্দ হওয়া হাজারো যানবাহন খোলা আকাশের নিচে সুন্দরগঞ্জের ভিজিএফ চাল বিতরণ ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে কামার সম্প্রদায় চাকু-ছোড়া ও বটির বানাতে ব্যস্ত সময় পাড় করছে খোলাহাটিতে আগুনে ৫ দোকান পুড়ে ছাই সুন্দরগঞ্জে পশুরহাটে পুলিশ জনতা-সংঘর্ষে ৪ রাউন্ড গুলি বর্ষন পুলিশসহ আহত ১০ গাইবান্ধা পৌর এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে কৃষি জমিতে বাড়ী নির্মান

সাঘাটায় হত্যা মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদীকে হুমকী

সাঘাটায় হত্যা মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদীকে হুমকী

সাঘাটা প্রতিনিধিঃ সাঘাটা উপজেলার ছিলমানেরপাড়া গ্রামের তোফাজ্জল হত্যার মামলা দায়েরের ১৪ দিন পেরিয়ে গেলেও অদ্যবধি থানা পুলিশের আসামী গ্রেফতার করার কোন তৎপরতা নেই। এদিকে আসামীরা বাদীকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকী প্রদর্শন করছে বলে বাদীপক্ষ জানায়।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানাযায়, উপজেলার কামালেরপাড়া ইউনিয়নের ছিলমানেরপাড়া গ্রামের মৃত বচন উদ্দিনের পুত্র তোফাজ্জল হোসেন বেপারী একই ইউনিয়নের শিমুলবাড়ী গ্রামের আব্দুল্লাহর পুত্র নজির হোসেন এর কাছ থেকে সাংসারিক প্রয়োজনের তাগিদে ১৫ হাজার টাকা ধার নেয়। কিছু দিন পর ধারকৃত ১৫ হাজার টাকার মধ্যে ৮ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। ঘটনার দিন ২৪ আগষ্ট পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে নজির হোসেন তার লোকজন নিয়ে বাকি ৭ হাজার টাকার জন্য তোফাজ্জলের বাড়ীতে এসে চাপ সৃষ্টি করে। বাকি ৭ হাজার টাকা দিতে তোফাজ্জল হোসেন ১ দিন সময় চায়। কিন্তু পাওনাদার নজির হোসেন কথা মেনে না নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। উভয়ের বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে নজির হোসেন তোফাজ্জলকে লোহার রড দিয়ে এলোপাথারি মারপিট করে। এতে সে গুরুত্বর আহত হলে সাঘাটা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তার অবস্থা আশংকা জনক হলে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেলে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরের দিন ২৫ আগষ্ট সে মারা যায়। এ ব্যাপারে নিহতের পুত্র বিল্লু মিয়া বাদী হয়ে সাঘাটা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ১৯, তারিখ ২৫/০৮/২০২০ইং।
এদিকে বাদী বিল্লু জানান, হত্যা মামলা দায়েরের ১৪ দিন পেরিয়ে গেলেও অদ্যবধি থানা পুলিশের আসামীদের গ্রেফতার করার কোন তৎপরতা নেই। তিনি আরো জানান, আসামীপক্ষ আমাকে মামলা তুলে নেওয়া সহ বিভিন্ন হুমকী প্রদর্শন করে আসছে।
এ ব্যাপারে সাঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ বেলাল হোসেন জানান, আসামীরা পলাতক রয়েছে। আসামীদের গ্রেফতার করার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করা হচ্ছে।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com