বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১১:২২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
খোর্দ্দকোমরপুর ইউপির উপনির্বাচন স্থগিত কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিঃ গাইবান্ধায় আ’লীগ-বিএনপির অফিসে-হামলা-অগ্নিসংযোগ সুন্দরগঞ্জে কোটা নিয়ে মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সুন্দরগঞ্জে নিখোঁজ যুবকের লাশ একদিন পর উদ্ধার গোবিন্দগঞ্জে ২ মাহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার মহিমাগঞ্জে প্রধান গ্রুপের সার্ভার স্টেশনে অগ্নিকান্ডে ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি পলাশবাড়ীতে মোটরসাইকেল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ঃ আহত ১ জন গোবিন্দগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালেয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ফলজ বৃক্ষের চারা বিতরণ তিস্তার পানি কমার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে ভাঙন শুরু হয়েছে পলাশবাড়ীতে মটরসাইকেলের ধাক্কায় যুবক নিহত

সরকার পানি ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে – ডেপুটি স্পীকার

সরকার পানি ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে – ডেপুটি স্পীকার

Digital Camera

স্টাফ রিপোর্টারঃ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে ক্ষুদ্রাকার পানি সম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সাঘাটা উপজেলার ভরতখালী ইউনিয়নের নীলকুটি ভাঙ্গামোড় এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রন অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার অ্যাডভোকেট মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি।
এসময় এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আহসান কবির, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর, সিনিয়র সহকারি প্রকৌশলী মোঃ সাবিউল ইসলাম, ভরতখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সামছুল আজাদ শীতল, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোমিনুল ইসলাম, ভরতখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি জাফিরুল ইসলাম জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক সুজাউদ্দৌলা সুজা, জেলা পরিষদ সদস্য সামছুজ্জোহা, সাকিউল ইসলাম সাকি, তাজুরুল ইসলাম, সম্ভাব্য ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ফয়জার রহমান, ঠিকাদার রাশু আহম্মেদ প্রমুখ। জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এই বন্যা নিয়ন্ত্রন অবকাঠামোটি নির্মাণে ১ কোটি ৯ লাখ টাকা ব্যয় হবে।
ডেপুটি স্পীকার বলেন, সরকার পানি ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে। আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় থাকে তখন জনগন কিছু পায়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খাদ্যের চাহিদা নিশ্চিত করতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের প্রনোদনার মাধ্যমে পূর্নবাসন করায় খাদ্য উৎপাদান বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে কৃষকরা নতুন ফসল চাষের মধ্যে দিয়ে ঘুরে দাঁড়াবে। এতে করে কৃষকরা স্বাবলম্বী হবে।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় একনেকের বৈঠকে সাঘাটা ও ফুলছড়ি উপজেলার যমুনা নদীর ভাঙন থেকে রক্ষা করার জন্য ৮শ’ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন করেছেন। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ শেষ হলে গাইবান্ধা জেলার ৪টি উপজেলার ৩২টি ইউনিয়ন বন্যা মুক্ত হবে।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com