শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
খোর্দ্দকোমরপুর ইউপির উপনির্বাচন স্থগিত কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিঃ গাইবান্ধায় আ’লীগ-বিএনপির অফিসে-হামলা-অগ্নিসংযোগ সুন্দরগঞ্জে কোটা নিয়ে মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সুন্দরগঞ্জে নিখোঁজ যুবকের লাশ একদিন পর উদ্ধার গোবিন্দগঞ্জে ২ মাহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার মহিমাগঞ্জে প্রধান গ্রুপের সার্ভার স্টেশনে অগ্নিকান্ডে ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি পলাশবাড়ীতে মোটরসাইকেল সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ঃ আহত ১ জন গোবিন্দগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালেয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ফলজ বৃক্ষের চারা বিতরণ তিস্তার পানি কমার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে ভাঙন শুরু হয়েছে পলাশবাড়ীতে মটরসাইকেলের ধাক্কায় যুবক নিহত

শহরে ব্যবসায়ীদের কুটকৌশলে বেড়েছে তরমুজের দাম

শহরে ব্যবসায়ীদের কুটকৌশলে বেড়েছে তরমুজের দাম

স্টাফ রিপোর্টারঃ দেশজুড়ে চলমান তীব্র তাপদাহে ইফতারের প্রধান উপকরণ হয়েছে তরমুজ। কিন্তু পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এই তরমুজ এখন কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। রমজান আর বৈশাখের খরতাপকে কেন্দ্র করে গাইবান্ধার ফল ব্যবসায়ীরা কুটকৌশলে বাড়িয়ে দিয়েছে তরমুজের দাম । ফলে ইচ্ছা থাকা স্বত্বেও ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে দাম হওয়ায় হতাশ মনে ফিরে যাচ্ছে অনেক ক্রেতা। গতকাল গাইবান্ধা শহরের বিভিন্ন মোড়ের দোকান ঘুরে দেখা গেছে, তরমুজের দামের বিশাল ফারাক। গত ১-২ বছর আগেও যেখানে তরমুজ আকারের উপর ভিত্তি করে কিনতে পাওয়া যেতো। এখন সেখানে এক কেজি তরমুজের দাম চলছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা । বেশি ভালো মানেরগুলো ৬৫ থেকে ৭৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এতে ৫ কেজির একটি তরমুজের জন্য ক্রেতাকে গুণতে হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা। এছাড়া ৮ থেকে ১০ কেজি একটি তরমুজ ওজন ছাড়া আগে বিক্রি হতো ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা। যা এখন ওজনে বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকায়। অথচ এই তরমুজের দাম ১৫০ টাকার বেশি হওয়ার কথা নয়। প্রতি তরমুজ কমপক্ষে ১০০ টাকার বেশিতে বিক্রি হচ্ছে। এতো ভারী একটি ফল ছোট পরিবারের জন্য কিনতে গেলেও ৫ কেজির নিচে হয় না।
স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, মৌসুম শেষ হওয়ায় অধিকাংশ কৃষকের ক্ষেতের তরমুজ বিক্রি প্রায় শেষের পথে। ফলে হঠাৎ করে এর চাহিদা বেড়ে গেছে। অপরদিকে, প্রচন্ড গরম এবং রমজান চলমান থাকায় মানুষ ঝুঁকে পড়েছে তরমুজের দিকে। তবে বাজারে গিয়ে অনেক ক্রেতা হোচট খাচ্ছে তরমুজের দাম শুনে। এদিকে, ওজনে তরমুজ বিক্রি করা নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে বাক-বিতন্ডা হওয়ার খবরও মিলেছে। এতে ক্রেতা-বিক্রেতারা উভয় পক্ষই বিপাকে জড়িয়ে পড়ছেন।
এ ব্যাপারে তরমুজ ক্রেতা মোঃ হায়দার আলী জানান, রমজান বলে তরমুজ কিনেছি। তবে ওজনে জীবনে এই প্রথম কিনলাম। সাজ্জাত নামে আরেক ক্রেতা জানালেন, ১৫ দিন আগে যে সাইজের তরমুজ ১০০ থেকে ১২০ টাকায় কিনেছি, বর্তমানে ওজনে তা ৩০০ টাকা দিয়ে কিনতে হচ্ছে।
অপর এক বিক্রেতা জানান, ওজন ছাড়া বিক্রি করলে অর্ধেক দামও পাওয়া যাবে না । এদিকে এমন পরিস্থিতিতে দেশের জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ফেসবুকে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেকে কেজি দরে তরমুজ বিক্রিকে ভোক্তাদের সঙ্গে বড় রকমের প্রতারণা ও চালবাজি আখ্যায়িত করছেন।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

 

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com