বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
গাইবান্ধায় খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যেঃ চলতি মৌসুমে ১ লাখ ২৮ হাজার হেক্টর জমিতে চাষ হবে রোপা আমন দোকান কর্মচারী ও ইলেকট্রিশিয়ানদের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদান অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিল ঢাকাস্থ গাইবান্ধা সমিতি গাইবান্ধায় বিজিবি-সেনা-পুলিশ সদস্যদের টহলঃ কঠোর লকডাউনের পঞ্চম দিনে রাস্তায় মানুষের চলাচল বৃদ্ধি গাইবান্ধায় করোনায় শনাক্ত ৬২ গাইবান্ধায় হাসান হত্যার প্রতিবাদ মঞ্চের সভা সাঘাটায় নবাগত ইউএনওর সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ফুলছড়িতে ব্রহ্মপুত্রের ব্যাপক ভাঙনঃ নদীগর্ভে ৫৫টি পরিবারের বসতবাড়ি ফসলী জমি গাইবান্ধায় ২৫টি মামলায় ২২ হাজার ৭শ’ টাকা জরিমানা কঠোর লকডাউনের চতুর্থ দিনে রাস্তায় লোক চলাচলঃ কারো মুখে মাস্ক নেই গাইবান্ধায় করোনায় নতুন শনাক্ত ৬৯

শহরের রাস্তাঘাটে অহেতুক ঘোরাফেরা ও আড্ডা না দিয়ে ঘরে থাকতে পরামর্শ

শহরের রাস্তাঘাটে অহেতুক ঘোরাফেরা ও আড্ডা না দিয়ে ঘরে থাকতে পরামর্শ

স্টাফ রিপোর্টারঃ করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ প্রতিরোধে গাইবান্ধা জেলা শহরের রাস্তাঘাটগুলোতে ও বিভিন্ন মোড়ে অহেতুক ঘোরাফেরা ও আড্ডা না দিয়ে বাড়ি ফিরে যেতে গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে পথচারিদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।
রোববার সকাল ১০টা থেকে জেলা শহরের বিভিন্ন সড়কে এ তৎপরতা শুরু করেছে পুলিশ। রিক্সা, মটর সাইকেলে দু’জন এবং অটোবাইকে এক সাথে গাদাগাদি করে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রেও বাধা দিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী নামিয়ে দিয়ে পরিবহন চালকদের বাড়ি ফিরে যেতে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। যাতে এ জেলায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়। এছাড়া অহেতুক ঘোরাফেরা করা এবং মোড়ে মোড়ে আড্ডা দেয়ার ক্ষেত্রেও পুলিশ বাধা প্রদান করে সকলকে বাড়ি ফিরে যেতে বলা হচ্ছে। তদুপরি সকাল ১১টার পর থেকে শহরের বাইরে থেকে রিক্সা, মটর সাইকেল ও বাই-সাইকেল নিয়ে শহরের মধ্যে প্রবেশ করার ক্ষেত্রেও বাধা দেয়া হয়। এমনকি রিক্সাসহ যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে রিক্সা চালকদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে।
এব্যাপারে গাইবান্ধা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ শাহরিয়ার জানান করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে জনেসচেতনতা সৃষ্টি এবং শহরে অহেতুক ঘোরাফেরা না করে সরকার নির্ধারিত তারিখ পর্যন্ত ঘরে থাকতে পরামর্শ দেয়ার জন্য গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশের পক্ষ থেকে এ তৎপরতা চালানো হচ্ছে।
তবে এব্যাপারে দরিদ্র রিক্সাচালকরা জানান, এতে তারা যাত্রী পরিবহন করতে না পেরে দুর্ভোগের কবলে পড়ছে। কেননা প্রতিদিন নির্ধারিত টাকায় ভাড়া নিয়ে তারা দিনভর রিক্সা চালিয়ে যে আয় করে তা দিয়ে রিক্সা ভাড়া পরিশোধ করা এবং তাদের পরিবার-পরিজনের জীবন জীবিকা হয়ে থাকে। এভাবে দিনের পর দিন রিক্সা চালাতে না পেরে তারা অর্থাভাবে পরিবার-পরিজন নিয়ে চরম দুর্ভোগের কবলে পড়ছে। এক্ষেত্রে তারা ত্রাণ সহায়তারও প্রত্যাশা করেন।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com