বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০৪ অপরাহ্ন

রোগ প্রতিরোধে ছাগল-ভেড়ার টিকা পেয়ে গৃহস্থদের স্বস্তি

রোগ প্রতিরোধে ছাগল-ভেড়ার টিকা পেয়ে গৃহস্থদের স্বস্তি

সাদুল্লাপুর প্রতিনিধিঃ সাদুল্লাপুর উপজেলায় বেশ কিছু খামারসহ অধিকাংশ পরিবারে পালন করে থাকেন ছাগল-ভেড়া। এ থেকে কেউ কেউ ঘুরিয়েছেন ভাগ্যের চাকা। কেউবা ক্ষতিগ্রস্থও হয়েছেন। এর কারণ, মাঝে মধ্যে ওইসব প্রাণির পিপিআর ও ক্ষুরা রোগে আক্রান্ত হওয়া। তাই রোগ প্রতিরোধে সরকারিভাবে শুরু হয়েছে ভ্যাকসিন প্রয়োগ। ইতোমধ্যে ছাগল-ভেড়া টিকা পেয়ে চিন্তামুক্ত হয়েছেন খামারী-গৃস্থালীরা। সম্প্রতি সাদুল্লাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের গড়ের মাঠসহ বিভিন্ন টিকা কেন্দ্রে দেখা গেছে-প্রাণিসম্পদ বিভাগের উদ্যোগে ছাগল ও ভেড়ায় ভ্যাকসিন প্রয়োগের চিত্র। এসময় সহস্রাধিক মানুষ তাদের পালিত ওইসব প্রাণির পিপিআর ও ক্ষুরা রোগের টিকা পেয়ে ফিরেছেন বাড়িতে।
সাদুল্লাপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, পিপিআর ও ক্ষুরা রোগ ছাগল-ভেড়ার মারাত্নক সংক্রমণ। এ রোগে শরীরের তাপমাত্র হঠাৎ করে অনেক বেড়ে যেতে পারে। নাক, মুখ, চোখ দিয়ে প্রথমে পাতলা তরল পদার্থ বের হয়। পরবর্তীতে তা ঘন ও হলুদ বর্ণ ধারণ করে। ধীরে ধীরে তা আরও শুকিয়ে নাকের ছিদ্র বন্ধ করে দিতে পারে। ফলে প্রাণিটির শ্বাসকষ্টসহ আরও অন্যান্য লক্ষণ দেখা দেয়। এ রোগে প্রায় ৪০ ভাগ প্রাণির মৃত্যুর খামারী বা গৃহস্থালীরা দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। মালিকদের এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে সারা দেশের ন্যায় সাদুল্লাপুর উপজেলায় বাস্তবায়ন হচ্ছে-পিপিআর রোগ নির্মুল ও ক্ষুরা রোগ নিয়ন্ত্রণ প্রকল্প। এরই অংশ হিসেবে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে গত ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে বিনামূল্যে ছাগল ও ভেড়ায় পিপিআর টিকা প্রদান কার্যক্রম। যা আগামী ৯ অক্টোবর পর্যন্ত চলমান থাকবে। শুরুতে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাওছার হাবীব ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডঃ মোছাঃ সুমনা আক্তার।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com