বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৮:১০ পূর্বাহ্ন

মহিমাগঞ্জে বাঙ্গালী নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে তিনটি সেতু

মহিমাগঞ্জে বাঙ্গালী নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে তিনটি সেতু

স্টাফ রিপোর্টারঃ গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ এলাকার বাঙ্গালী নদীর সতীতলা মজিদেরঘাট, দেওয়ানতলা সড়কসেতু ও দেওয়ানতলা রেলসেতু এলাকা থেকে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের মহোৎসব শুরু হয়েছে। একই সাথে নদীর চরের বালু চুরি করে বিক্রি করায় দেওয়ানতলা রেলসেতুসহ তিনটি সড়ক সেতু হুমকির সম্মুখিন হয়ে পড়েছে।
জানা গেছে, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাথে পাশর্^বর্তী সাঘাটা, ফুলছড়ি এবং গাইবান্ধা সদরের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম দেওয়ানতলা সড়কসেতু এলাকায় এবং দেওয়ানতলা রেলসেতু এলাকায় এক শ্রেণির স্বার্থান্বেষী বালু ব্যবসায়ী চক্র প্রচলিত আইন ও প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে দিনরাত নদী থেকে শ্যালো মেশিন দিয়ে ভূ-গর্ভস্থ বালু উত্তোলন করছে। এতে ওই এলাকার রেলসেতু এবং দেওয়ানতলা সড়ক সেতুটি মারাতœক হুমকির সম্মুখিন হয়েছে পড়েছে। এছাড়াও এখান থেকে মাত্র এক কিলোমিটার ভাটি এলাকায় অবস্থিত মজিদেরঘাট এলাকায় ভূ-গর্ভস্থ ও নদীচরের মাটি চুরি করে অবাধে বিক্রি করছে স্থানীয় দুই বালুদস্যু। এতে একদিকে যেমন গুরুত্বপূর্ণ সড়কসেতুও একই কারণে ধ্বসে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। এ কারণে এসব এলাকার জনবসতি এবং আবাদি জমি ধ্বংস হওয়ার আশংকা করছে স্থানীয় গ্রামবাসীরা। ইতোমধ্যেই বেশকিছু আবাদী জমি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তাঁরা।
অন্যদিকে বালুবাহী অবৈধ ট্রাক্টরগুলো বালু বোঝাই করে দিনরাত দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এখানকার বিভিন্ন সড়কে। এতে ঘটছে নানা ধরণের দুর্ঘটনা এবং নষ্ট হয়ে যাচ্ছে রাস্তাঘাট। ইতোমধ্যেই ট্রাক্টরের বালু পড়ে বালুময় হয়ে পড়েছে বেশকিছু সড়ক। যানবাহন চলাচলের ফলে ধূলোয় অন্ধকার হয়ে পড়ছে গোটা এলাকা। বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর কিছুদিন পূর্বে প্রশাসনের উদ্যোগে দেওয়ানতলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলনের কাজে বেশ কয়েকটি শ্যালো মেশিন ধ্বংস করা হয়। কিন্তু আবারও প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবারও বালু উত্তোলনের মহোৎসব শুরু করেছে বালুদস্যুরা। অবিলম্বে স্থানীয় জনবসতি, আবাদী জমি এবং এলাকার গুরুত্বপূর্ণ একটি রেলসেতু সহ বৃহৎ তিনটি সড়ক সেতু রক্ষায় প্রশাসনকে কঠোর ও কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের আবেদন জানিয়েছেন সচেতন মানুষ।
এব্যাপারে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রুবেল আমিন শিমুল জানান, দীর্ঘদিন যাবত বালুদস্যুরা অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সেতু হুমকির মুখে ফেলেছে। তাই এসব বালুদস্যুদের বিরুদ্ধে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com