মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৯:১৪ অপরাহ্ন

বাদিয়াখালীতে পাকা ধানের জমিতে হাটু পানিঃ কৃষক বিপাকে

বাদিয়াখালীতে পাকা ধানের জমিতে হাটু পানিঃ কৃষক বিপাকে

বাদিয়াখালী প্রতিনিধিঃ হঠাৎ করে জৈষ্ঠ্যের প্রথম সপ্তাহে গত বৃহষ্পতিবার দিনগত রাতে বাদিয়াখালীর উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া দমকা ঝড়ো হাওয়া বৃষ্টিতে এলাকার গাছপালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং নিচু জমির ধান ক্ষেতে হাটু পানি জমেছে। সেই সাথে শাক-সব্জির জমিতে আটকা পড়া পানিতে ক্ষেতের শাক-সব্জির ক্ষতি হওয়ার আশংকা রয়েছে। তবে ঝড় বৃষ্টি বাতাসে ঘড়বাড়ি ও বোরো ক্ষেতের তেমন কোন ক্ষতি হয়নি বলে জানা গেছে। আকাশে রোদ নেই বৃষ্টিতে ভেজা পল(খড়) নিয়ে বিপাকে কৃষকরা।
কাল বৈশাখী মাস কেটিয়ে ওঠার পর হঠাৎ করে জৈষ্ঠ্য মাসের প্রথম সপ্তাহে গত বৃহষ্পতিবার দিনগত রাত সাড়ে আটটার দিকে বাদিয়াখালীতে শুরু হয় দমকা ঝড়ো হাওয়া ও প্রবল বৃষ্টি। প্রায় আধাঘন্টা ব্যাপী প্রবল বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়ায় বিভিন্ন জাতের গাছের ডালপালা ভেঙ্গে যায়। ঘড় বাড়ির তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি না হলেও তালুক রিফাইতপুর গ্রামের মঞ্জুয়ারা নামের এক অসহায় মহিলার টিন সেট ঘড়ের একপার্শে¦র চালা উড়ে যায়। এদিকে নুরুলগঞ্জ হাট এলাকায় কয়েকটি দোকান ঘড়ের উপর বিশাল আকারের একটি এন্ট্রি গাছের ডালপালা ভেঙ্গে পড়ায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে বেচে যায়। কাল বৈশাখী মাসের শেষ ও জৈষ্ঠ্য মাসের প্রথম ভাগে প্রায় চৌদ্দ আনা জমির বোরো ধান কাটা মাড়াই হয়েছে তবে এলাকার কিছু কিছু জমিতে থাকা নমলা আধাপাকা বোরো ধানের জমিতে পানি জমলেও সেগুলো ক্ষেতের ধানের ক্ষতি হওয়ার কোন সম্ভবনা নেই বলে জানা গেছে। ঝড় বৃষ্টিতে শাক-সব্জি জমিতে পানি আটকে পরায় সেগুলো জমির শাক-সব্জির কিছুটা ক্ষতি হতে পারে বলে আশংকা করছেন কৃষকরা। এদিকে বৃষ্টিতে ভেজা পল(খড়) বাওবাতাসে শুকাতে রাস্তার উপর নেমে পড়েছে কৃষক কৃষানীরা। গত বৃহস্পতিবার ঝড় বৃষ্টির সময় বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার প্রায় পনের ঘন্টা পর গত শুক্রবার দুপুর বারোটার দিকে বিদ্যুতের মুখ দেখা গেলেও রাত ৮/৯টা পর্যন্ত বারবার বিদ্যুৎ যওয়া আসা করছিল। এদিকে গত শুক্রবার দিনগত রাত আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে বাদিয়াখালীতে আবারও শুরু হয় ঝড়-বৃষ্টি। সেসময়ে বিদ্যুৎ চলে যায়। গত শনিবার সকাল এগারোটার দিকে বাদিয়াখালীতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিলে ট্রান্সফরমারের উপরে হঠাৎ ফায়ারিং এবং বিকট শব্দে লোকজন আতংকে এদিক সেদিক ছোটাছুটি করতে থাকে বলে জানা যায়। পরে খবর পেয়ে গাইবান্ধা বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন এসে দেখতে পায় ট্রান্সফরমার থেকে সার্ভিস লাইনের উপর গাছের ভাঙ্গা ডালপালা পড়ে আছে। পরে পোনে দুইটার দিকে বিদ্যুৎ পাওয়া গেলেও ঘন্টা দুয়েক পর আবার চলে যায়। পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে আবার বিদুৎ সংযোগ আসে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com