বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০১:২৩ অপরাহ্ন

ফুলছড়িতে ভগ্নিপতিকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মারপিটের অভিযোগ

ফুলছড়িতে ভগ্নিপতিকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে মারপিটের অভিযোগ

ফুলছড়ি প্রতিনিধিঃ ফুলছড়িতে ভগ্নিপতিকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে গিয়ে মারপিট ও বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা। গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি। নিরাপত্তা চেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের।
অভিযোগ জানা যায়, ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ কাঠুর গ্রামের সায়দার রহমানের ছেলে মশিউর রহমানের সাথে দুই বছর আগে জোরভিটা গ্রামের মৃত সৈয়দ আলীর মেয়ে মোর্শেদা আকতারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মোর্শেদা আকতার তার শ্বশুর-শ্বাশুরির সাথে যৌথ সংসারে থাকতে অপারগতা প্রকাশ করতে থাকে। একারণে তাদের সংসারে প্রায়ই অশান্তি লেগে থাকতো। বিষয়টি নিয়ে সুবিধা করতে না পারায় মোর্শেদা আকতার বেশ কয়েক দফা তার বাবার বাড়িতে চলে যায় এবং তার ভাইদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাপের বাড়িতেই অবস্থান করে। কয়েক দফা সালিশী বৈঠকে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা শহীদুল ইসলাম ও কামাল পাশাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের পরামর্শে মোর্শেদার শ্বশুর তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। কিছুদিন আগে মোর্শেদা আকতার আবারও অভিমান করে তার বাবার বাড়িতে চলে যায়। বাবার বাড়িতে অবস্থানকালে মোর্শেদা আকতার তার মায়ের অসুস্থ্যতার কথা বলে গত ৬ আগষ্ট মশিউর রহমানকে ডেকে নেন। এদিন রাতে খাবারের পর মোর্শেদার চার ভাই অতর্কিতভাবে মশিউর রহমানের উপর হামলা করে এবং রশি দিয়ে হাত, পা ও মুখ বেধে বেধরক মারপিট করে। এক সময় তারা বালিশ চাপা দিয়ে মশিউরকে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। বিষয়টি জানার পর মশিউরের বাবা সহ কয়েকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে সে মূমুর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। মশিউর রহমানের উপর অমানবিক শারীরিক নির্যাতনের আইনানুগ ব্যবস্থা ও তার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গত সোমবার বিকেলে ফুলছড়ি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে মশিউর রহমানের বাবা সায়দার রহমান।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com