বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৯:০৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
গাইবান্ধায় খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যেঃ চলতি মৌসুমে ১ লাখ ২৮ হাজার হেক্টর জমিতে চাষ হবে রোপা আমন দোকান কর্মচারী ও ইলেকট্রিশিয়ানদের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদান অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিল ঢাকাস্থ গাইবান্ধা সমিতি গাইবান্ধায় বিজিবি-সেনা-পুলিশ সদস্যদের টহলঃ কঠোর লকডাউনের পঞ্চম দিনে রাস্তায় মানুষের চলাচল বৃদ্ধি গাইবান্ধায় করোনায় শনাক্ত ৬২ গাইবান্ধায় হাসান হত্যার প্রতিবাদ মঞ্চের সভা সাঘাটায় নবাগত ইউএনওর সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ফুলছড়িতে ব্রহ্মপুত্রের ব্যাপক ভাঙনঃ নদীগর্ভে ৫৫টি পরিবারের বসতবাড়ি ফসলী জমি গাইবান্ধায় ২৫টি মামলায় ২২ হাজার ৭শ’ টাকা জরিমানা কঠোর লকডাউনের চতুর্থ দিনে রাস্তায় লোক চলাচলঃ কারো মুখে মাস্ক নেই গাইবান্ধায় করোনায় নতুন শনাক্ত ৬৯

পলাশবাড়ীতে পুলিশকে আহত করে হাতকড়া নিয়ে আসামির পালায়ন

পলাশবাড়ীতে পুলিশকে আহত করে হাতকড়া নিয়ে আসামির পালায়ন

পলাশবাড়ী প্রতিনিধিঃ পলাশবাড়ী উপজেলার হরিনাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের তিন পুলিশকে আহত করে হাতকড়া নিয়ে আসামি পালালো।
উপজেলায় প্রতারণাসহ একাধিক মামলার আসামি ফরহাদকে ধরার সময় পুলিশের ওপর হামলা করেছে টাকা কাটা ( টাকশাল) বাহিনী। হামলায় এস, আইসহ ৩ পুলিশ সদস্যকে আহত করে হাতকড়াসহ পালিয়েছে আসামি। এই ঘটনায় চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। আহত পুলিশ সদস্যদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
রোববার সকাল দশটার দিকে উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের পুটিমারী গ্রামের টাকশাল পাড়ায় এই ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, টাকা কাটা মেশিন দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে টাকা কেটে আসছিল প্রতারণাসহ একাধিক মামলার আসামী ( টাকশাল পাড়ার) মৃত খয়বর হোসেনের ছেলে টাকশাল ফরহাদ হোসেন। তাকে ঢাকার একটি মামলায় ধরতে ডিএমপি’র দুই পুলিশসহ উপজেলার হরিনাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কয়েকজন পুলিশ সদস্য তার বাড়িতে হানা দিয়ে ধরে ফেলে ফরহাদকে। এ সময় টাকশাল বাহিনী পুলিশের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা করলে হাতকড়াসহ পালিয়ে যায় ফরহাদ।
এ হামলায় এসআই কৃঞ্চনো, কনষ্টেবল শফি, ও ডিএমপি ‘র একজনসহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এরপর ঘটনাটি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হলে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে অভিযান চালিয়ে হাতকড়াসহ ফরহাদকে ওই গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এসময় আরও চারজনকে আটক করে পুলিশ।
আটককৃতরা হলেন- সাহেব আলীর ছেলে আফসার আলী, সাইফুল ইসলামের ছেলে আউয়াল, ছাত্তারের ছেলে গনি মিয়া ও রফিক। তবে রফিকের বাবার নাম জানা যায়নি।
হরিনাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক রাকিব হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘এই ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। পুলিশের ওপর হামলাকারিদের ধরতে অভিযান অব্যহত আছে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com