শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
সাদুল্লাপুরে প্রকাশ্যে বিনামূল্যের ভিজিএফ এর চাউল বেচাকেনা সুন্দরগঞ্জে কুরবানীর হাটে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ গ্রেফতার আতঙ্কে চার গ্রামে ঈদের আনন্দ বিষাদে পরিণত পলাশবাড়ীতে চায়না দুয়ারী শয়তান জাল পুড়িয়ে দিলেন অবশেষে গাইবান্ধা প্রেসক্লাব সিলগালা রাজস্ব হারাচ্ছে সরকারঃ জব্দ হওয়া হাজারো যানবাহন খোলা আকাশের নিচে সুন্দরগঞ্জের ভিজিএফ চাল বিতরণ ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে কামার সম্প্রদায় চাকু-ছোড়া ও বটির বানাতে ব্যস্ত সময় পাড় করছে খোলাহাটিতে আগুনে ৫ দোকান পুড়ে ছাই সুন্দরগঞ্জে পশুরহাটে পুলিশ জনতা-সংঘর্ষে ৪ রাউন্ড গুলি বর্ষন পুলিশসহ আহত ১০ গাইবান্ধা পৌর এলাকায় অপরিকল্পিত ভাবে কৃষি জমিতে বাড়ী নির্মান

নলডাঙ্গা বাজারে প্রবেশদ্বারের সড়কটি যেন খালে পরিণত

নলডাঙ্গা বাজারে প্রবেশদ্বারের সড়কটি যেন খালে পরিণত

নলডাঙ্গা (সাদুল্লাপুর) প্রতিনিধিঃ সড়ক নয় যেন একটি খাল। এমন বেহাল চিত্র সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা বাজারের প্রবেশদ্বারের পাকা সড়কটির। জনগুরুত্বপূর্ন ও ব্যস্ততম সড়কটি দিয়ে দিবারাত্রি হাজার হাজার পথচারী ও বাস ট্রাক, মাইক্রোবাস, ইজিবাইক, অটোরিকসাসহ বিভিন্ন ধরনের অসংখ্য যানবাহন চলাচল করে থাকে। সামান্য বৃষ্টিতেই নলডাঙ্গা বাজারের প্রবেশদ্বারের প্রায় ৫ শত ফিট সড়কে হাঁটু পানি জমে থাকে।
স্থানীয়রা জানান, সড়কটি পাকাকরনের সময় অপরিকল্পিত ভাবে নির্মান কাজ করা হয়। ফলে সড়কটির পাশে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থাকলেও নেই পানি নিস্কাসনের ব্যবস্থা।
গতকাল সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, সড়কটির আশেপাশের বাড়ির মালিক ও ব্যবসায়ীরা তাদের স্বীয়স্বার্থে পানি নিস্কাসনের ড্রেনের পথ বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই হাঁটু পানি জমে কাঁদা পানিতে এককার হয়ে যায়। বিদ্যামান এ অবস্থায় পথচারী এবং যাত্রী ও মালবাহি ছোট বড় যানবাহন চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়তে হয়।
ভুক্তভোগিরা জানান, প্রয়োজনের তাগিদে হাট বাজার করার জন্য এই সড়কে যেতে হয়। কিন্তু হাটে ঢোকার সামান্য আগেই ৫ শত ফিট সড়কে জমে থাকা পানির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হয়। অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচলের সময় কাঁদাপানি ছিটকে পথচারীদের গাঁয়ে ও আশেপাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পড়ে কাপড় এবং মালামালে নষ্ট হয়।
এনিয়ে মাঝে মধ্যেই ব্যবসায়ী ও পথচারীদের সাথে যানবাহন চালকদের তুমুল বাগবিতন্ডা ও মারমুখী পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এহেন নাজুক অবস্থার সড়কটিতে প্রায় সময়ই পানি জমে থাকায় ক্রেতার অভাবে আশেপাশের বিভিন্ন ধরনের ব্যবসায়ীদের বেচাকেনা অনেকটা কমে যায়। ফলে ব্যবসায়ীদের অনেকটা ক্ষতি সাধন হয় বলে জানা গেছে।
বিশেষ করে স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীদের প্রতিনিয়তই চরম বিড়ম্বনার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। ভুক্তভোগি এসব শিক্ষার্থী কাঁদা পানির সড়কে চলাচল করতে গিয়ে পা ফঁসকে পড়ে পরিহিত কাপড় ও বই পুস্তক ভিজে ফেলছে। স্থানীয় কাপড় হুমায়ুন কবির ক্ষোভের সাথে বলেন,সড়কটিতে কাঁদা পানির জন্য ক্রেতা সাধারন আসতে পারে না। ফলে এসময় আশেপাশের ব্যবসায়ীদের বেচাকেনায় অনেকটা মন্দাভাব দেখা দেয়। তিনি আরো বলেন এ অবস্থার প্রতিকার চেয়ে ইতিপূর্বে আমরা ব্যবসায়ীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে লিখিতভাবে জানিয়েছিলাম।
তারপরেও এব্যাপারে কোন কার্যকরি ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। রুহুল আমিন নামের আরেক ব্যবসায়ী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে জনগুরুত্বপূর্ন সড়কটিতে পানি জমে থাকায় সড়কটির বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠতে শুরু করছে। এভাবে আর কিছুদিন চলতে থাকলে সড়কটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়বে। স্থানীয় অটোবাইক চালক,জাহাঙ্গীর মুকুল মিয়া ও এনামুল হক বলেন,বর্ষা মৌসুম পড়লেই এই সড়কটি দিয়ে যাত্রী নিয়ে চলাচলের সময় দূর্ঘটনার আশংকায় ভয়ে ভয়ে গাড়ী চালাইতে হয়।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com