মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

ধাপেরহাটে ১০ দিনে ৭টি বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দুঃসাহসিক চুরি

ধাপেরহাটে ১০ দিনে ৭টি বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দুঃসাহসিক চুরি

ধাপেরহাট (সাদুল্লাপুর) প্রতিনিধিঃ সাদুল্লাপুর উপজেলার মহাসড়কের উপর অবস্থিত ধাপেরহাট বন্দরে গত ১০ দিনে ৭টি বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বড় ধরনের চুরি সংঘঠিত হলেও পুলিশ আজ অবদি ঐ চোর সিন্টিগেট চক্রের কোন সদস্যকে গ্রেফতার করতে পারিনি। একের পর এক চুরি সংঘটিত হওয়ায় ধাপেরহাট হয়েছে চোরের অভয় অরন্য। আইনশৃংখলার অবনতি দেখে উদ্ব্যেগ, উৎকন্ঠায় রয়েছে বন্দর বাসী। গতকাল আবারো চুরি হয়েছে ধাপেরহাট আর, ভরসা কোল্ড স্টোর সংলগ্ন মহাসড়কের পশ্চিম পাশ্বে ব্যবসায়ী সুমন মিয়ার ভাড়া বাসায়। সংঘবদ্ধ চোরেরা বাসার গেটের দরজার তালা ভেঙ্গে দিনে দুপুরে নগদ ২ ভরি স্বর্ণলংকারসহ আনুমানিক ১লাখ ৫০ পঞ্চাশ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে গেছে। তার দু’দিন আগে গত ২৫ অক্টোবর রাতে ধাপেরহাট আর ভরসা কোল্ড স্টোর-এর প্রাচীর টপকিয়ে একই কায়দায় চোরের দল তালা ভেঙ্গে আলমারীর ড্রয়ার থেকে নগদ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা চুরি করেন, তার দু’দিন আগে একই কায়দায় মা ষ্টোর ব্যবসায়ী মশিউর মেম্বারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাটারের তালা ভেঙ্গে দোকানের ৩ লাখ টাকার মামলামাল চুরি করেন। একই সপ্তাহে ধাপেরহাট বন্দরের মায়ের দোয়া এলুমেনিয়াম স্টোরে চুরি সংঘটিত হয়েছে। এ ছাড়াও দিনে দুপুরে চুরি হয়েছে ধাপেরহাট আমবাগান রোডের আকাশ নামক এক শিক্ষক দম্পতির বাসা, ফাইভ স্টার মোরের ১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তাছাড়াও বিগত ১ বছরে একই কায়দায় দিনে দুপুরে প্রায় ৬জন শিক্ষক দম্পতির বাসা চুরি হয়েছে। বিগত ২ বছরে ছোটবড় ৩০ থেকে ৩৫টি চুরি সংঘটিত হলেও পুলিশ আজ অবদি এই চোর সিন্টিগেটের কোন সদস্যকে গ্রেফতার করতে না পারায় দিনের পর দিন চুরির ঘটনা যেন নিত্যদিনের সঙ্গি হয়ে দাড়িয়েছে বন্দর বাসির। উদ্বেগ উৎকন্ঠায় রয়েছে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস কারী ও ব্যবসায়ীগন। ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রজব আলী জানান, সংশ্লিষ্ট ঘটনাগুলি শোনার পর আমরা ঘটনা স্থলে যাই, কিন্তু কেউ মামলা করতে চায়না। তার পরেও আমরা ঐ চোর সিন্টিগেড চক্রের সদস্যদের গ্রেফতারের জন্য জোরালো অভিযান অব্যহত রেখেছি।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com