বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন

ধাপেরহাটে যুবলীগ নেতা আটক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বিক্ষোভ মিছিলঃ পুলিশের ৩ রাউন্ড গুলি বর্ষণঃ অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

ধাপেরহাটে যুবলীগ নেতা আটক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বিক্ষোভ মিছিলঃ পুলিশের ৩ রাউন্ড গুলি বর্ষণঃ অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

ধাপেরহাট (সাদুল্লাপুর) প্রতিনিধিঃ সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাটে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এক যুবলীগ নেতা ও স্থানীয় কাপড় ব্যবসায়ী’কে আটকের জের ধরে পুলিশ ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে। এর প্রতিবাদে স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী এবং স্থানীয় কাপড় ব্যবসায়ীরা যৌথভাবে ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) নওয়াবুর রহমানের অপসারন এবং যুবলীগ নেতা পলাশের অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে রংপুর-বগুড়া মহাসড় বিক্ষোভ মিছিল করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বন্দরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। সাদুল্লাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদ রানা ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ ও প্রত্যক্ষ দর্শীরা জানান, ইদিলপুর ইউনিয়নের দক্ষিন লক্ষিপুর গ্রামের সহিদ সরকার তার স্ত্রী মামুনিসহ বন্দরের মাষ্টার হাউজে প্রায় দুই বছর যাবৎ বাসা ভাড়া নিয়ে থাকত। স্বামী স্ত্রীর কলহের জের ধরে স্বামী তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে একটি অভিযোগ করলে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ অভিযোগ তদন্ত করতে ঐ বাসায় যায়। এসময় বিবাদী স্ত্রী মামুনীর পক্ষ নিয়ে কথা বলে ধাপেরহাট ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও বন্দরের কাপড় ব্যবসায়ী রাব্বি সাহান পলাশ। পুলিশের সঙ্গে কথা কাটাকাটির সময় ঘটনাটি ভিডিও ধারন করতে থাকেন ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ধরে ঘটনাস্থলে এ,এস,আই আজিজুর রহমান,এসময় পলাশ ভিডিও করতে বাধা দিয়ে তার হাত থেকে মোবাইল ফোনটি কেড়ে নিলে উত্তাপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এসময় ইনচার্জ নওয়াবুর রহমান পলাশকে আটক করে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়। তাকে দেখার জন্য ৫/৬জন দলীয় লোকজন পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দিকে অগ্রসর হলে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছোড়েন। পরে পলাশের মুক্তি ও অবিলম্বে আই,সির অপসারনের দাবিতে ধাপেরহাট কাপড় ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতা কর্মী ও স্থানীয় আ’লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা যৌথ ভাবে রংপুর-বগুড়া মহাসড়কে একটি বিক্ষোভ মিছিল করে এবং ২ ঘন্টাকালব্যাপী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখেন। ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নওয়াবুর রহমান জানান, পুলিশি কাজে বাধা দেওয়ায় তাকে আটক করা হয়েছে এবং পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ঘেরাও করার চেস্টা করলে ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষন করা হয়। এ বিষয়ে স্থানীয় আ’লীগ নেতাকর্মীদের বক্তব্য পরস্পর বিরোধী, স্থানীয় আ’লীগের সভাপতি জালাল উদ্দিন মন্ডল হিরু জানান, অন্যায়ভাবে পলাশকে আটক করে বেদম মারপিট করেছে পুলিশ, তবে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ঘেরাও করার মতো কোন পরিস্থিতি ঘটেনি। এদিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে সাদুল্লাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদ রানা ও ওসি তদন্ত মোস্তাফিজুর রহমান সঙ্গী ফোর্সসহ দ্রুত ঘটনা স্থলে এসে নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা করে পরিস্থিতি শান্ত করেন। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত ধাপেরহাট বন্ধরে অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়ে করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com