বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:০৭ অপরাহ্ন

তুলশীঘাটে প্লট কিনে বিপাকে পড়েছেন প্রবাসী

তুলশীঘাটে প্লট কিনে বিপাকে পড়েছেন প্রবাসী

স্টাফ রিপোর্টারঃ গাইবান্ধা সদর উপজেলার সাহাপাড়া ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের প্রবাসী শাহিন সরকার তার কষ্টার্জিত টাকায় স্বপ্নের ঠিকানা খুঁজতে গিয়ে সাহাপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মাহবুবুর রহমানের নিকট থেকে তুলসীঘাট পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘেষা আবাসন ঠিকানায় একটি প্লট কেনেন।
যার মৌজা পীরগাছা, জেএল নং ৫০, সিএস খতিয়ান নং ১০৬,আর এস খতিয়ান নং ১৮৪, বিআরএস খতিয়ান নং ২০, সাবেক দাগ নং ৬৫, হাল দাগ নং ৮০, জমির পরিমাণ ৭৭ শতাংশের মধ্য হতে সাড়ে ৫ শতাংশ।
সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান টুলুর প্রতিপক্ষ গাইবান্ধা সদরের পূর্ব কোমরনই গ্রামের বাসিন্দা তুলসীঘাটস্থ ব্যবসায়ী আবুল বাশারের নিকট থেকে গত ২৭/০৫/২০১২ ইং তারিখে ৩৬৫৩ নং দলিল মূলে নালিশি জমিসহ ৩৩ শতাংশ জমি এবং ১১/০৭/২০১২ ইং তারিখে ৫১৯৯ নং কবলা দলিল মূলে সাড়ে ৬৮ শতাংশ জমি ক্রয় করেন, যার রেকর্ডীয় মালিক আলিম গং। জমি কেনার সময় মরহুম চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান টুলু নিজ নামে জমিটি খারিজ করে নেন। যার খারিজ কেস নং ৬৯৪/২০১২-২০১৩, তারিখ ২৩/১০/২০১২, খারিজ খতিয়ান নং ২৫৯।
প্রবাসী শাহিন সরকার জমি কেনার পর দখলও বুঝে নেন এবং তার স্ত্রী সন্তান এই জমিতে বসত করা শুরু করেন, জমি ক্রয়ের পর প্রবাসী শাহিন সরকার নিজ নামে এই জমি খারিজ করে নেন যার খারিজ কেস নং নং ৪১০০/২০১৩-২০১৪, তারিখ ১০/০৮/২০১৪, খারিজ খতিয়ান নং ২৭১।
এই জমিতে দীর্ঘসময় বসত করাকালীন জমির পূর্ব মালিক আবুল বাশার প্রবাসীর স্ত্রী সন্তানদের নানাবিধ হুমকি-ধামকি প্রদান করে আসছে এবং জমির দখল ছেড়ে দেয়ার হুমকি দেয়। এরই এক পর্যায়ে গত ১৬ মার্চ দুপুরে জমির মালিক ব্যবসায়ী পূর্ব কোমরনই গ্রামের মৃত আব্দুল হাদীর পুত্র আবুল বাশার, ঘটনাস্থল ভবানীপুর গ্রামের মকবুল হোসেন পুত্র ইব্রাহিম মিয়া, একই গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের পুত্র মানিক মিয়া, মনিরুল ইসলামসহ আরও ৮/১০ জনের একটি দল অনাধিকার বাড়িতে প্রবেশ করে প্রবাসীর স্ত্রী খালেদা আক্তার পান্নাকে মারপিট করে এবং গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করে এ সময় তারা বাড়িঘর ভাঙচুর করে প্রায় ৯৫ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করে চলে যায়।
এ বিষয়ে প্রবাসীর স্ত্রী খালেদা আক্তার পান্না লিখিত অভিযোগ নিয়ে থানায় ধর্ণা দিয়েও অদৃশ্য কারনে এজাহার দাখিল করতে পারেনি বলে তিনি জানিয়েছেন।
অপরদিকে প্রভাবশালী ব্যবসায়ী জমির পূর্ব মালিক ঘটনার তারিখ গত ৯ মার্চ দেখিয়ে ঘটনার দিন ১৬ মার্চ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে জমির প্রকৃত মালিক প্রবাসীর স্ত্রী খালেদা আক্তার পান্নাসহ তার পরিবারের অন্যান্য লোকজনকে হয়রানি করে আসছে।
বিষযটি সমাধানে প্রবাসীর অসহায় স্ত্রী খালেদা আক্তার পান্না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু দৃষ্টি কামনা করেছেন।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

 

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com