সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

চিচিং ফাঁক আলী বাবা থিম পার্ক সুন্দরগঞ্জে!

চিচিং ফাঁক আলী বাবা থিম পার্ক সুন্দরগঞ্জে!

স্টাফ রিপোর্টারঃ চিচিং ফাঁক শব্দটির ফারসি ও আরবি শব্দ। যা আরব্য উপন্যাসের সহস্র রজনীর ‘আলী বাবা ও ৪০ চোর’ গল্পের একটি জাদু শব্দ। যে গল্পে ৪০ জন চোর তাদের চুরিকৃত ধনরত্ন ওই চিচিং ফাঁক শব্দটি বলে একটি গুহার মুখ খুলে সেখানে লুকিয়ে রাখতো। আর কাঠুরে আলী বাবা সেই শব্দটি ব্যবহার করে ওই গুহা থেকে অর্জন করেছিলেন অনেক ধনরত্ন।
হ্যাঁ, এটি আরব্য রজনীর সেই আলী বাবা ৪০ চোর গল্প না হলেও এটি সুন্দরগঞ্জে নির্মাণাধীন আলী বাবা থিম পার্কের গল্প। যা এখন অনেকটাই দৃশ্যমান।
উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৭ কিমি দূরে মীরগঞ্জ-চৈতন্যবাজার-ইমামগঞ্জ বাজার হয়ে সোজা উত্তর দিকে গাইবান্ধা, রংপুর, কুড়িগ্রাম জেলার সম্মিলন স্থানে তিস্তা নদীর তীরে ৩৫ একর জমির উপর চমৎকার এক নৈসর্গিক প্রাকৃতিক পরিবেশে এই আলীবাবা থিম পার্কের অবস্থান।
আরব্য উপন্যাসের সেই জাদু শব্দ চিচিং ফাঁক বলে দরজা খুলে মণিমাণিক্য না মিললেও এই আলী বাবা থিম পার্কের প্রবেশ পথেই চোখে পড়বে মহান আল্লাহর ৯৯ নাম খচিত নির্মাণাধীন ২০ মিটার উঁচু ভাস্কর্য, দেয়ালে দেয়ালে চোখে পড়বে জাতীয় স্মৃতিসৌধ, জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম, জেরুজালেমের পবিত্র মসজিদ আল আকসা, পবিত্র কাবা শরীফ, হজরত ফাতেমা (রাঃ)-এর বাড়ি, জর্ডানের মরুভূমির সেই সাহাবি গাছসহ খোদাই করা বিভিন্ন ঐতিহাসিক নিদর্শনের চিত্র। দর্শনার্থীদের বসার জন্য রয়েছে সিমেন্ট দিয়ে গাছের আদলে তৈরি বসার চেয়ার, রয়েছে বেঞ্চ।
দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগিয়ে পরিপাটি করে সাজানো হয়েছে নয়নাভিরাম রাস্তা।
ইনডোর গেমে দেখার সুযোগ থাকবে মহান আল্লাহর ৯৯ নামের উপর থ্রী ডি মুভি। উদাহরণসরুপ বলা যায়, মহান আল্লাহর একটি নাম রাজ্জাক যার অর্থ অন্নদাতা। থ্রী ডিতে সমুদ্রের বড় মাছের খাদ্য সংস্থান কিভাবে হয় তা দেখানো হবে। আবার ধরুন, আরেকটি নাম কাহ্হার, যার অর্থ আল্লাহ মহা ক্ষমতাধার। এটির উদাহরণ হিসেবে আগ্নেয়গিরির গলিত লাভা বা বড় বড় সাপ কিভাবে মানুষকে দোযখে দংশন করতে পারে তা দেখানো হবে ওই থ্রী ডিতে। এমনটাই বলছিলেন আলী বাবা পার্কের স্বত্বাধিকারী মোঃ ইয়ার আলী।
সর্ব উত্তরে থাকবে পাহার ও পানির উপর দিয়ে ট্রেন চলাচলের ব্যবস্থা, থাকবে পানির ঢেউ, সেই ঢেউয়ে মেতে উঠবে দর্শনার্থীরা। পূর্বপাশে থাকবে পুকুর, থাকবে সেই পুকুরে মাছ, সাথে লাগোয়া থাকবে পিকনিক স্পট।
পুরো পরিকল্পনা অনুযায়ী আলী বাবা থিম পার্কটি নির্মাণ কাজ শেষ হলে এটি হবে এ অঞ্চলের মানুষের জন্য বিশেষত্বে ভরা বিনোদনের একটি অন্যতম জায়গা, বলছিলেন ইয়ার আলী। তিস্তার ভরা যৌবনে পার্কটি হয়ে উঠবে আরও মনোরম। দর্শনার্থীরা পাবে নির্মল হাওয়া।
এলাকায় বিনোদনের কোনো জায়গা না থাকায় ইতোমধ্যে সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বিভিন্ন বয়সের দর্শনার্থীরা তীরবর্তী বিশাল এ উন্মুক্ত পার্কটিতে করছেন ভিড়। এটিকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠছে বিভিন্ন দোকানপাট।ছোঁয়া লেগেছে ওই চরাঞ্চলে আধুনিকতার। তিস্তা পাওয়ার প্লান্টকে ঘিরে গড়ে উঠা থিম পার্কটি ওই পাওয়ার প্লান্ট চালু হওয়ার সময় একই সাথে চালু হবে বলে জানিয়েছেন ওই স্বত্বাধিকারী।
চিচিং ফাঁক বলে আরব্য উপন্যাসের সেই আলী বাবার মতো ধনরত্ন না পেলেও দর্শনার্থীরা যাতে ইতিহাস, ঐতিহ্যসহ বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি পেতে পারেন অশ্লীলতামুক্ত স্বচ্ছ বিনোদন, তেমনটি প্রত্যাশা সবার।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com