সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন

গোবিন্দগঞ্জে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে তীব্র যানজটঃ দুর্ভোগের শিকার যাত্রীসাধারণ ও ব্যবসায়িরা

গোবিন্দগঞ্জে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে তীব্র যানজটঃ দুর্ভোগের শিকার যাত্রীসাধারণ ও ব্যবসায়িরা

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোবিন্দগঞ্জে ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক ও দিনাজপুর-ঢাকা ভায়া গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে তীব্র যানজটে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন চলাচলকারী যানবাহনের যাত্রী, চালক ও স্থানীয় ব্যবসায়িরা। শহরের মধ্যদিয়ে চলে যাওয়া এই দুুটি মহাসড়কে দীর্ঘদিন শহর এলাকায় এলোপাথারী ভাবে যানবাহনের চলাচলে এবং মহাসড়কের পাশেই রিক্সা ও অটোরিক্সা দাঁড়িয়ে থাকায় সড়ক সংকুচিত হয়ে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে নানা ধরণের দুর্ভোগের হচ্ছেন স্থানীয়রা।
ঢাকা-রংপুর মহাসড়ক এবং দিনাজপুর-ঢাকা ভায়া গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে দুটি গোবিন্দগঞ্জ শহরের মধ্য দিয়ে চলে যাওয়ায় উত্তরাঞ্চলের ৮ জেলার সাথে সড়ক যোগযোগের ক্ষেত্রে প্রবেশ দ্বার হিসেবে গোবিন্দগঞ্জ বিশেষ ভাবে পরিচিত। উত্তরের রংপুর, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, নীলফামারী, লালমণিরহাট, কুড়িগ্রাম ও গাইবান্ধা জেলার সকল প্রকার যানবাহন রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে চলাচল করে। এ ছাড়াও মধ্যপাড়া, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এবং হিলি, বুড়িমারী, সোনাহাট, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের পন্যবাহী বিভিন্ন ধরণের হালকা ও ভারী যানবহন গোবিন্দগঞ্জ শহর হয়ে যাতায়াত করে। কিন্তু শহর এলাকায় মহাসড়কের বেশীভাগ অংশ দখল করে সিএনজি, ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা, রিক্সা এলোপাথারি ভাবে দাঁড় করে রাখায় যানজট যেন নিত্যনৈমিত ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে কারণে দুরপাল্লা ও জরুরী পরিসেবার গাড়ীসহ সব যানবাহন দীর্ঘ সময় যানজটে আটকা পড়ে থাকতে হয়।
গোবিন্দগঞ্জ শহরের ব্যবসীদের অভিযোগ সিএনজি ও ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সার কিছু চালক মহাসড়কের পাশে দাঁড় করে যাত্রী তোলায় এবং যাত্রীর জন্য দাঁড় করে রাখায় অন্য যানবাহন স্বাভাবিক গতিতে চলাচল করতে পারে না। যে কারণে শহর এলাকায় যানবাহনের জট বাড়তে থাকে। মাত্র কিছুদিন আগে যানজটের কারণে তড়িঘড়ি করে মাঝে মধ্যেই প্রাণহানি ঘটছে।
ব্যবসায়ি সোলায়মান আলী, পবিত্র কুমার, বলেন যানজটের কারণে ক্রেতা সাধারণ সড়ক পারাপার হতে না পারায় বেচা কেনা কমে যাচ্ছে। আবার যানবাহনের হর্ণের শব্দ দোকানে থাকা কঠিন হয়ে পড়ে।
গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ, বলেন আমরা মহাসড়কের কাজ চলমান রয়েছে। যে কারণে শহর এলাকা জুড়ে ছোট বড় খানা খন্দকে ভরে গেছে। এ ছাড়াও থানা চারমাথা থেকে উপজেলা সড়ক পর্যন্ত শহরের মহাসড়কে অংশটি সংকুচিত রয়েছে। সড়ক সংস্কার শেষ হলে সমস্যা কাটিয়ে উঠবে।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com