শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৮:০৭ পূর্বাহ্ন

ফুলছড়ির বন্ধুমহলের সংবাদ সম্মেলন

ফুলছড়ির বন্ধুমহলের সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টারঃ ২ মাস ১৪ দিন পেরিয়ে গেলেও ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আশিকুর রহমান রকি হত্যার মূল আসামীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশ। গ্রেপ্তার করতে পারেনি এজাহারনামীয় অন্য আরও দুই আসামীকেও। সেই সাথে হত্যার রহস্যও উদঘাটন করতে পারেনি তারা। তাই এই ছাত্রলীগ নেতার হত্যাকারী সকল আসামীকে অতিদ্রুত গ্রেপ্তার ও ফাঁসির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
গতকাল ফুলছড়ির মধ্য কঞ্চিপাড়া গ্রামে আশিকুর রহমানের বাড়িতে এলাকাবাসী ও বন্ধুমহলের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিহত আশিকুর রহমান রকির বড় ভাই মোঃ আতিকুর রহমান রোস্তম।
লিখিত বক্তব্যে মোঃ আতিকুর রহমান রোস্তম বলেন, আমার ছোট ভাই ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আশিকুর রহমান রকি দীর্ঘদিন ধরেই বেশ সুনামের সাথে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে আসছে। এমতাবস্থায় চলতি বছরের ১১ জুলাই রাত সাড়ে নয়টার দিকে অসুস্থ্য মায়ের ওষুধ কিনে গাইবান্ধা জেলা শহর থেকে ফুলছড়ি উপজেলার মধ্যকঞ্চিপাড়া গ্রামের বাসায় ফিরছিলেন। ফেরার পথে গাইবান্ধা-বালাসীঘাট সড়কের গাইবান্ধা পৌরসভা এলাকায় হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরির মোড়ে আমার ভাই ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আশিকুর রহমান রকিকে নৃশংসভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এই হত্যাকা-ের মূল পরিকল্পনাকারী গাইবান্ধা পৌরসভার পূর্বপাড়া এলাকার মোঃ কাঞ্চন ও ইমরান খান। তাদের সহযোগি ছিল মানিক মিয়া ও সোহাগ মিয়াসহ বেশ কয়েকজন। আসামীরা জনসম্মুখে আমার ভাইকে খুন করলেও পুলিশ এজাহারভূক্ত মূল আসামীসহ অন্যদের আজও গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এজাহারভূক্ত মাত্র একজন ও অজ্ঞাতনামা চার আসামীকে গ্রেপ্তার করে বসে আছে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com