বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন

গাইবান্ধায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বাধ পরিদর্শনে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী তীর সংরক্ষন কাজের মাধ্যমে নদী ভাঙন স্থায়ী সমাধান করা হবে

গাইবান্ধায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বাধ পরিদর্শনে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী তীর সংরক্ষন কাজের মাধ্যমে নদী ভাঙন স্থায়ী সমাধান করা হবে

স্টাফ রিপোর্টারঃ গাইবান্ধায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বাধের বিভিন্ন পয়েন্ট পরিদর্শন করেছেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি। গতকাল প্রথমে গাইবান্ধা সদর উপজেলার কামারজানী নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেন। তিনি শুক্রবার দুপুর আড়াইটায় কামারজানী নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন কালে সাংবাদিকদের জানান, কামারজানীর গোঘাট গ্রাম ও সুন্দরগঞ্জের শ্রীপুর-কাপাসিয়া এলাকা যমুনা ও তিস্তা নদীর ভাঙন হতে রক্ষা কল্পে ৫ হাজার ৪’শ মিটার নদী তীর সংরক্ষন প্রকল্প পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ে রয়েছে যা আগামী মাসেই একনেক সভায় উপস্থাপনের জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে প্রতিমন্ত্রিত্ব দিয়েছে নদী ভাঙনের সমস্যা সমাধানের জন্য, সেই দায়িত্ববোধ নিয়েই আপনাদের মাঝে এসেছি নদী ভাঙন থেকে রক্ষা কল্পে তীর সংরক্ষন কাজের মাধ্যমে স্থায়ী সমাধান নিশ্চিত করতে। আগামী মাসেই ডিপিপি বিশেষ গুরুত্বসহ একনেক সভায় উপস্থাপন করা হবে। তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষের জীবিকায়নের উন্নতিতে আমাদের সরকার যুগোপযোগী এবং কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার মাধ্যমে আজ জন আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক মো. মাহফুজুর রহমান, রংপুর প্রধান প্রকৌশলী জোতি প্রসাদ ঘোষ, গাইবান্ধার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোখলেছুর রহমান, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. সেলিম হোসেন, কামারজানী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবদুস ছালাম জাকির প্রমূখ।
পরে তিনি সদর উপজেলার গোদারহাট ও ফুলছড়ি উপজেলার বালাসীঘাট ও ১৯৭১ সালের বদ্ধভূমি ও গণকবর এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com