বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন

কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২ ইউপি সদস্যের লিখিত অভিযোগ

কিশোরগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২ ইউপি সদস্যের লিখিত অভিযোগ

পলাশবাড়ী প্রতিনিধিঃ পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিকের নানামুখী দূর্ণীতি-অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর অভিযোগ দাখিল করেছেন ১২ ইউপি সদস্য স্বাক্ষরিত অভিযোগটি গত রোববার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট দাখিল করা হয়।
অভিযোগে জানা যায়, ওই ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক নির্বাচিত হবার পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার প্রায় সকল কাজে বিভিন্ন দূর্ণীতি-অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতা করে আসছেন। এসব বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে ইউপি সদস্যবৃন্দ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর অভিযোগ করতে চাইলে চেয়ারম্যান তার অবস্থান থেকে বরাবরই আর কোনো দূর্ণীতি-অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতা করবেন না মর্মে মৌখিক অঙ্গীকার করেন। কিন্তু পরবর্তীতে তার প্রতিশ্রুত অঙ্গীকার বেমালুম ভুলে আবারো পূর্ববর্তী অবস্থানে ফিরে দূর্ণীতিতে আবদ্ধ হয়ে পড়েন।
স্বাক্ষরিত পত্রে উল্লেখিত অভিযোগ গুলো হচ্ছে; ইউপি সদস্য/কর্মচারী ছাড়াও এলাকার সাধারণ জনগণের সাথে অহেতুক এবং অকারণে অশোভনীয় আচরণ। গ্রাম আদালতে মামলার বাদী ও বিবাদীর নিকট অবৈধ নগদ অর্থ গ্রহণ, গ্রাম আদালতের সদস্য কিংবা প্রতিনিধি ছাড়াই মনগড়া মামলা পরিচালনা, ইউপি’র উন্নয়নমূলক কাজের বিপরীতে প্রাপ্ত বরাদ্দের ২৫% অর্থ চেয়ারম্যান নিজেই কোনো জবাবদিহি ছাড়াই শুধুমাত্র ৬নং ওয়ার্ডভূক্ত আসমতপুর, ফলিয়া ও লোকমানপুর গ্রামে দায়সারা কাজ সম্পাদন করে থাকেন।
অপরদিকে; কোনো পরামর্শ বা মতবিনিময় না করেই ইউপির ১% বরাদ্দের টাকা কোথায় কিভাবে ব্যয় করে থাকেন এ ব্যাপারে ইউপি সদস্যদের কোনো কিছু অবগত করেন না। তিনি প্রায় সম্পূর্ণ অর্থই আত্মসাৎ করেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া সরকারি বিধিবিধানের কোনো তোয়াক্কা না করে ম্যানেজ প্রক্রিয়ায় খেয়ালখুশি মত আহ্বানকৃত টেন্ডারের অর্থ ও ইউপি এলাকার ইটভাটা সমূহ থেকে আদায়কৃত ট্যাক্সের অর্থ, ইউপি ভবনে অবস্থিত মোবাইল টাওয়ারের ভাড়ার টাকা তিনি বরাবরই আত্মসাৎ করে আসছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

Thank you for reading this post, don't forget to subscribe!

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com