বুধবার, ২৯ মার্চ ২০২৩, ০৫:৫১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
শিক্ষা ব্যাবস্থা উন্নত আধুনিক ও শিক্ষার মান উন্নয়নের কৃতিত্ব একমাত্র প্রধানমন্ত্রীর -মাহমুদ হাসান রিপন এমপি সুন্দরগঞ্জে সাব প্রাণী সম্পদ কল্যাণ কেন্দ্রের বেহালদশাঃ গ্রাম গঞ্জে পশু ডাক্তারের নামে হাতুড়ে ডাক্তারের ছড়াছড়ি গাইবান্ধায় আওয়ামীলীগের ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ উদযাপন সাঘাটায় রেকর্ডভুক্ত জমিতে ব্রীজ নিমার্ণ কাজে বাধাঁ প্রদান করায় ঠিকাদার কর্তৃক থানায় অভিযোগ কলেজপাড়ায় পৌর নাগরিকদের সভা নলডাঙ্গায় নবীন ও বসন্ত বরণ অনুষ্ঠান গাইবান্ধায় স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে মতবিনিময় সভা গাইবান্ধায় মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন গোবিন্দগঞ্জে সরকারি বই বিক্রিকালে জনতার হাতে শিক্ষক-কর্মচারী আটক দারিয়াপুরে বাম জোটের সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আধুনিক পদ্ধতিতে তৈরি হচ্ছে ঢেঁকি ছাটা চাল

আধুনিক পদ্ধতিতে তৈরি হচ্ছে ঢেঁকি ছাটা চাল

স্টাফ রিপোর্টারঃ গাইবান্ধায় ‘ডিজিটাল ঢেঁকি’ উদ্ভাবন করেছেন প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম। বর্তমান প্রযুক্তি ও আধুনিকতার যুগে ঢেঁকির মাধ্যমে ধান থেকে চাল তৈরি করা প্রায় বিলুপ্তির পথে। তারপরও প্রাচীন এ ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে নতুন রূপে আধুনিক পদ্ধতিতে তৈরি হচ্ছে ঢেঁকি ছাটা চাল। আর এসবই সম্ভব হয়েছে গাইবান্ধা সদর উপজেলার খামার বোয়ালী গ্রামের যুবক প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলামের উদ্যোগে।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ডিজিটাল পদ্ধতির ঢেঁকির মাধ্যমে ধান থেকে চাল তৈরি করে বাজারজাত করছেন শফিকুল ইসলাম। তার এই ঢেঁকি ছাটা চাল বেশ সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ায় সারা ফেলেছে এলাকায়। এ পদ্ধতির মাধ্যমে অসংখ্য মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাও রয়েছে তার।
গাইবান্ধা সদর উপজেলার খামার বোয়ালী গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিনের ছেলে তিনি। তার স্বপ্ন ছিল পড়ালেখা শেষ করে চাকরি না করে নিজের মাধ্যমে অন্যের কর্মসংস্থান তৈরি করার। সে লক্ষ্য থেকেই নিজস্ব চিন্তাচেতনায় আধুনিক পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ ও মোটরের মাধ্যমে স্থাপন করেন ডিজিটাল ঢেঁকি।
প্রাচীন ঢেঁকিতে ধানের তুষ ছাড়িয়ে চাল বের করা খুব কষ্টসাধ্য ও সময়-সাপেক্ষ। তবে শফিকুল ইসলামের তৈরি করা আধুনিক পদ্ধতির ঢেঁকিতে ধান ভানা খুবই সহজ। এতে কম সময়ে বেশি পরিমাণ চাল বের করা যায়।
প্রাচীন পদ্ধতিতে ধান থেকে চাল বের করতে হয় ঢেঁকির একপ্রান্তে পা দিয়ে পালাক্রমে চাপ প্রয়োগ করে বা পাড় দিয়ে। আর এ ঢেঁকিতে বিদ্যুতের মাধ্যমে মোটরচালিত লোহার হাতল দিয়ে পালাক্রমে চাপ দিয়ে ধানের তুষ ছাড়িয়ে চাল বের করা হচ্ছে। এতে সময় ও শ্রম খরচ হচ্ছে কম।
কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করে মধ্যযুগীয় পদ্ধতিতে বড় পাতিলে ধান ঢেলে চুলায় খড়ির মাধ্যমে জ্বাল দিয়ে ধান সেদ্ধ করা হয় এখানে। আবার সেই ধান শুকিয়ে ঢেঁকির মাধ্যমে প্রস্তুত করা হচ্ছে ঢেঁকি ছাটা চাল। এ চালের ফাইবার (আঁশ) নষ্ট না হওয়ায় পুষ্টিসমৃদ্ধ এবং স্বাস্থ্যসম্মত হয়। ফলে ডিজিটাল ঢেঁকির চালের চাহিদা বেড়েছে ব্যাপক। এ ঢেঁকির মাধ্যমে দিনে ৬-৭ মণ ধান থেকে চাল বের করা যায়।
বর্তমানে স্বল্প পরিসরে হলেও প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলামের ডিজিটাল ঢেঁকিতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন অনেকে। প্রযুক্তিগত বা কারিগরি সহায়তা পেলে বৃহদাকারে গ্রামীণ জনগণের কর্মসংস্থান হবে।

নিউজটি শেয়ান করুন

© All Rights Reserved © 2019
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com